বিশেষ নিবন্ধ

স্বাধীন দেশে বঙ্গবন্ধু সরকার কর্তৃক গৃহীত যুগান্তকারী সফল পদক্ষেপসমূহ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিছক কয়েকটি সরকারি প্রকল্প বা সিদ্ধান্তের নিক্তিতে মাপতে যাওয়া সমীচীন নয়। রাজনীতিবিদ এবং ব্যক্তি হিসেবে বঙ্গবন্ধুর মহানুভবতা, আদর্শিক সংগ্রাম, কষ্ট স্বীকার ও আত্মত্যাগ বিশ্ব ইতিহাসে বিরল। একটি পরাধীন জাতির স্বাধীনতা অর্জনে তিনি সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন, বঙ্গবন্ধুকে আজীবন কৃতজ্ঞতার সঙ্গে প্রাতঃস্মরণীয় করে রাখতে এই একটি কারণই যথেষ্ট থেকে অনেক ...

১২ জানুয়ারি ১৯৭২ঃ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহন করেন বঙ্গবন্ধু

১২ জানুয়ারি বঙ্গভবনে বিপুল করতালি, জয় বাংলা ও বঙ্গবন্ধু জিন্দাবাদ ধ্বনির মধ্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। শপথ নেওয়ার পর তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে ১১ সদস্যের মন্ত্রিসভার নাম দেন। প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার আগে বিচারপতি আবু সাঈদ চৌধুরী তাকে আমন্ত্রণ জানিয়ে বলেন, বঙ্গবন্ধু জাতির জনক ও অবিসংবাদিত নেতা, যার ওপর জনসাধারণের পূর্ণ আস্থা রয়েছে...

১০ জানুয়ারি ১৯৭২ঃ বিজয়ী বাংলার সবুজে ফিরলেন মুক্তির মহানায়ক

বইছিল স্বাধীনতার সুবাতাস। শ্লোগানে মুখরিত চারদিক, আকাশ-বাতাস, জোর গলায় উচ্চারিত হচ্ছে, “জয় বাংলা”, তেজগাঁও পুরাতন বিমানবন্দর জুড়ে যেন অনুরণিত হয়ে চলেছে, প্রতিধ্বনিতে একাকার হালকা শীতের আমেজময় সেই ঐতিহাসিক ১০ই জানুয়ারী, ১৯৭২ সাল। বেলা দ্বিপ্রহরের পরপরই হাজার দশেকেরও বেশি সদ্য মুক্তির স্বাদ পাওয়া আবেগে উদ্বেলিত বাঙালি সেখানে জড়ো হয়েছিলেন, যদিও তার...

১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারী স্বদেশে ফিরে রেসকোর্স ময়দানে বঙ্গবন্ধুর ভাষণ

৮ জানুয়ারি ১৯৭২ সালে পাকিস্তানি কারাগার থেকে মুক্তিলাভ করে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বদেশের মাটিতে পা রাখেন দুই দিন পরে ১০ জানুয়ারী। উপস্থিত জনতার ঢলে ভেসে যাচ্ছিল বিমানবন্দর। বিশাল জনসমুদ্রের সামনে দাঁড়িয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন বঙ্গবন্ধু, নাতিদীর্ঘ ভাষনে জাতিকে দেন দিক নির্দেশনা। নিচে পুরো ভাষণটি তুলে ধরা হলো- --- আমি প্রথমে স্মরণ করি আমার বাংলাদে...

স্বাধীনতার জন্য জাতির মনন প্রস্তুত করে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে চোখ রেখেছিলেন বঙ্গবন্ধু

১৯৪৭ সালে শুধু ধর্মের ভিত্তিতে ভারত ও পাকিস্তান নামে দুটি পৃথক রাষ্ট্র সৃষ্টির পরই স্পষ্ট হয়ে যায় যে, পাকিস্তানের পূর্বাঞ্চল তথা পূর্ব বাংলার সংখ্যাগরিষ্ঠ সাত কোটি মানুষ প্রতারণার শিকার হয়েছেন। তখন থেকেই বাঙালির সংস্কৃতি ও অর্থনীতির ওপর পাকিস্তানি জান্তাদের আগ্রাসনের বিরুদ্ধে সোচ্চার হন তৎকালীন তরুণ নেতা শেখ মুজিবুর রহমান। ১৯৪৮ সালে মাতৃভাষা বাংলায় কথা বলার অধিকার রক্...