গুম-হত্যার রাজনীতির প্রবর্তক জিয়াউর রহমান

বাংলাদেশে যদি গুম-হত্যার রাজনীতি কেউ প্রবর্তন করে থাকে তাহলে সেটি জিয়াউর রহমান বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয়। শুক্রবার (১২ আগস্ট) বিকেলে শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হল মাঠে হল ছাত্রলীগ আয়োজিত শোক দিবসের আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এ মন্তব্য করেন তিনি। আল নাহিয়ান খান বলেন, আমরা সবাই জানি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ ম...

বঙ্গবন্ধু হত্যা: জিয়া-মোশতাকদের দীর্ঘদিনের নীলনকশার দলিল

স্বাধীনতা পর দেশের ৮০ শতাংশ দরিদ্র মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য শোষিতের গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। মাত্র তিন মাসের মধ্যে মিত্র বাহিনীর ভারতীয় সেনাদের ফেরত পাঠাতে সক্ষম হন তিনি। এরপরই ১৯৭২ সালের ২৬ মার্চ দেশের ব্যাংক, বীমা, পাট, বস্ত্র, চিনি ও জাহাজ শিল্পসজ সব ভারীশিল্পকে জাতীয়করণের ঘোষণা দেন। কিন্তু বাঙালি জাতির ভাগ্য পরিবর্ত...

জিয়াউর রহমান: বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যাকাণ্ডের প্রধান নেপথ্য কুশীলব

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারের হত্যার ঘটনার ইতোমধ্যে ৬ জন খুনির ফাঁসি কার্যকর করা হয়েছে। পালিয়ে বেড়াচ্ছে আরো অনেকে। কিন্তু যারা বছরের পর বছর ধরে এই বর্বর হত্যাকাণ্ডের নেপথ্য ক্রীড়নক হিসেবে কাজ করেছে, তাদের পরিবারও পরবর্তীতে ভোল পাল্টে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি বলে দাবি করে সরলপ্রাণ সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করেছে। তবে যুক্তরাষ্ট্র...

অস্ত্রের মুখে জিয়া রাষ্ট্রপতি সায়েমকে পদত্যাগে বাধ্য করেছিলেন: সজীব ওয়াজেদ

অস্ত্রের মুখে জিয়া রাষ্ট্রপতি আবু সাদাত মোহাম্মদ সায়েমকে পদত্যাগে বাধ্য করেছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় তার ভেরিফায়েড ফেসবুক স্ট্যাটাসে এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি রাষ্ট্রপতি আবু সাদাত মোহাম্মদ সায়েম এর লেখা ‘অ্যাট বঙ্গভবন: লাস্ট ফেজ’ বই থেকে উদ্ধৃত করে লেখেন, বাংলাদেশের প্রথম প্রধান বিচারপতি রাষ্ট্রপতি আবু সাদাত মোহাম্মদ সায়েম তার ব...

স্বৈরশাসকদের ষড়যন্ত্রের কারণে দেশে শক্তিশালী বিরোধী দল নেই: সজীব ওয়াজেদ

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় জিয়াউর রহমান ও হোসেইন মুহাম্মদ এরশাদের দলের সঙ্গে গণতন্ত্রের সম্পৃক্ততার অভাব আছে বলে সমালোচনা করে বলেছেন, স্বৈরশাসক জিয়া ও এরশাদ তাদের অবৈধ ক্ষমতা দখলকে বৈধতা দেয়ার জন্য গঠন করেন। সম্প্রতি সজীব ওয়াজেদ জয় তার ফেসবুক পোস্টে লিখেন, ‘জিয়াউর রহমান ও এরশাদ উভয়েই তাদের অবৈধ ক্ষমতা দখলকে বৈধতা দেয়ার...

জিয়া ও খালেদা শিক্ষার্থীদের হাতে অস্ত্র তুলে দিয়েছিলো

পানি সম্পদ উপমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম এনামুল হক শামীম এমপি বলেছেন, পাকিস্তানের সামরিক শাসক জেনারেল আইয়ুব খান ছাত্রদের হাতে অস্ত্র তুলে দেন। ১৯৭৫ সালের ১৫আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার পর ওই আইয়ুবের পদাঙ্ক অনুসরণ করে জিয়াউর রহমান, এরশাদ ও খালেদা জিয়া ছাত্রদের হাতে বই-খাতা-কলমের পরিবর্তে অস্ত্র তুলে দিয়েছিলো। আর বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিন...

মুক্তিযুদ্ধে জিয়ার রেডিও বিবৃতি ও কিছু কথা

মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন: ২৫শে মার্চ ১৯৭১। রাত ১১ টা ৪৫ মিনিট। পাকিস্তানি দখলদার বাহিনী সর্বশক্তি নিয়ে অতর্কিতভাবে নিরস্ত্র বাঙালির ওপর ঝাঁপিয়ে পড়লো। আক্রান্ত মানুষের আর্তচিৎকার, কামানের আওয়াজ, রকেট লাঞ্চার আর ট্রেসার বুলেটের আগুনের ঝলকানিতে সমগ্র ঢাকা নগরী পরিণত হলো নরকের বিভীষিকা। এমনই মুহূর্তে বঙ্গবন্ধু গোপন ট্রান্সমিটারের মাধ্যমে বলধা গার্ডেন থেকে অথবা মগবাজার বঙ্গবন্...

যুবসমাজকে ধ্বংস করতে তাদের হাতে অস্ত্র ও মাদক তুলে দিয়েছিল জিয়া

জিয়াউর রহমান এদেশের তরুণ সমাজকে বিপথগামী করেছিল। জিয়াউর রহমান পাকিস্তানের এজেন্ট হিসাবে এদেশকে ধ্বংস করার উদ্দেশ্যে তরুণ সমাজের হাতে অস্ত্র তুলে দিয়েছিল। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে অস্ত্রের ঝঙ্কার নিত্ত-নৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছিল। অপর দিকে বঙ্গবন্ধুকন্যা বিনামূল্যে পুস্তক দিয়ে যাচ্ছে ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে। আমাদের সজাগ থাকতে হবে যুবকদের যাতে স্বাধীনতা বিরোধীচক্র বিভ্রান্ত...

৭ নভেম্বর: একই দিনের বহু নাম

বিভুরঞ্জন সরকারঃ ১৯৭৫ সালের ৭ নভেম্বর বাংলাদেশে এমন একটি ঘটনা ঘটেছিল, যা পরবর্তী সময়ে দেশের রাজনীতিতে বিভক্তির ধারাকে পোক্ত করেছিল। ৭ নভেম্বরের ঘটনার পরিকল্পনাকারী ছিলেন সেনাবাহিনী থেকে অবসরে যাওয়া কর্নেল আবু তাহের এবং তার রাজনৈতিক দল জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল- জাসদ এবং ঘটনার পুরো সুফল নিজের ঝুলিতে ভরতে সক্ষম হয়েছিলেন মেজর জেনারেল জিয়াউর রহমান। ওইদিন হত্যা কর...

৭ নভেম্বর: মুক্তিযোদ্ধা হত্যা ও রাজাকারের ক্ষমতায়ন শুরু করেন জিয়া

তন্ময় আহমেদ: ৭ নভেম্বর ১৯৭৫। বাংলাদেশের ইতিহাসের আরও একটি কালো অধ্যায়। ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে নির্মমভাবে সপরিবারে হত্যা, ৩ নভেম্বর বঙ্গবন্ধুর বিশ্বস্ত সহচর ও জাতীয় চার নেতাকে জেলের মধ্যে বর্বরভাবে হত্যার পরেও থামেনি স্বাধীনতাবিরোধীদের রক্তপিপাসা। নিজেদের ক্ষমতা পাকাপোক্ত করতে ৭ নভেম্বর সেনানিবাসে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে নির্বিচারে হত্যা করা হয় মুক্তিযোদ্ধা সেনা কর্মকর্তাদের। এ...

৭ নভেম্বর: সেনানিবাসে বিশৃঙ্খলা ও মুক্তিযোদ্ধা সেনা হত্যার ষড়যন্ত্রময় অধ্যায়

১৯৭৫ সালের ৬ নভেম্বর রাত ১২টার পর থেকেই বিশৃঙ্খলা শুরু হয় ঢাকা সেনানিবাসে। বঙ্গবন্ধু হত্যার নেপথ্য কুশীলব ও সেনাপ্রধান জিয়াউর রহমানের আহ্বানে সাড়া দিয়ে সক্রিয় হয়ে ওঠে কর্নেল তাহেরের বিপ্লবী সৈনিক সংস্থার সদস্যরা। বঙ্গবন্ধুর খুনি মেজর মহিউদ্দিনের নেতৃত্বে হত্যা ও লুটপাট শুরু করে পাকিস্তানফেরত সৈন্যরা। বাঙালি জাতির ইতিহাসে এটি একটি ন্যাক্কারজনক অধ্যায়। ১৫ আগস্টের বর্বরতা...

জিয়ার শাসনামলে সেনাসদস্য হত্যাকাণ্ডের বিচার হওয়া জরুরী, প্রয়োজন জনমতেরঃ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জিয়াউর রহমানের শাসনামলে সামরিক ক্যু’র অজুহাতে সশস্ত্রবাহিনীর অসংখ্য কর্মকর্তা হত্যার বিচারের ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিত উল্লেখ করে এজন্য জনমত সৃষ্টির প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এই বিষয়টা নিয়ে যখন দাবি উঠেছে তখন এটা নিয়ে নিশ্চই ব্যবস্থা নেয়া উচিত বলে আমি মনে করি। এরজন্য ভাল জনমতও সৃষ্টি হওয়া দরকার। কিভাবে ...

জিয়া কারাগারে কত মানুষকে হত্যা করেছে তা খুঁজে বের করুনঃ সংসদে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রধানমন্ত্রী এবং সংসদ নেতা শেখ হাসিনা আজ সামরিক শাসক জিয়াউর রহমানের আমলে দেশে ‘সামরিক ক্যু’র ওজর তুলে বিভিন্ন কারাগারে কি পরিমান মানুষ হত্যা করা হয়েছে তা খুঁজে বের করার জন্য সংসদ সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।   প্রধানমন্ত্রী একাদশ জাতীয় সংসদের চতুর্দশ অধিবেশনের সমাপনী ভাষণে এই আহ্বান জানান। এ সময় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী অধিবে...

বাংলাদেশের স্বাধীনতায় জিয়ার অবদান কোথায়?

তাজিন মাবুদ ইমন: পাকিস্তানের জন্ম হয়েছিল ১৯৪৭ সালে আর ঠিক ১৯৪৮ সালেই পাকিস্তানের প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ ঢাকা এসে ঘোষণা করলেন উর্দু হবে পাকিস্তানের রাষ্ট্রভাষা। সাথে সাথে পূর্ব পাকিস্তানের বাঙালিরা তার প্রতিবাদ করে বিক্ষোভ শুরু করে দিল। আন্দোলন তীব্রতর হয়ে ১৯৫২ সালের ২১শে ফেব্রুয়ারি সারা পূর্ব পাকিস্তানের মানুষ বিক্ষোভে ফেটে পড়ল। পুলিশের গুলিতে প্রাণ দিয়েছি...

জিয়াউর রহমানের নাম বিশ্বাসঘাতক হিসেবে লেখা থাকবে

বাংলাদেশের ইতিহাসে জিয়াউর রহমানের নাম সব সময় বিশ্বাসঘাতক ও খুনি হিসেবে লেখা থাকবে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।   বৃহস্পতিবার (২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সচিবালয়ে মন্ত্রণালয় সভাকক্ষে কেবল অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন, অ্যাটকো, বিদেশি চ্যানেলের ডিস্ট্রিবিউটর, আকাশ, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধির সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ ম...

১৯৭১ঃ পঞ্চাশ বছর পরে রাজাকারদের ইতিহাস

সৈয়দ বদরুল আহসানঃ স্বাধীনতার ৫০ বছর পরে ইতিহাস সংরক্ষণের জন্য মুক্তিযোদ্ধাদের একটি পুর্ণাঙ্গ তালিকার প্রয়োজন আছে। স্বাধীনতার জন্য যারা সংগ্রাম করেছেন, যুদ্ধ করেছেন আজ তারা সবাই বয়সের ভারে ন্যুজ্ব, একসময় থেমে যাবে তাঁদের জীবনের পথচলা। তাই মুক্তিযুদ্ধ-পরবর্তী প্রজন্ম তো বটেই, আগামী প্রজন্মের কাছেও এঁদের ইতিহাস তুলে ধরতে আমরা দায়বদ্ধ। এরই সাথে সেসকল বাঙ্গালীদের তালিকা ...

জিয়ার নাম কোথায়?

অজয় দাশগুপ্তঃ বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফকরুল ইসলাম এবং আরও কয়েকজন নেতা যথার্থই বলেন– ‘কারও ভাষণে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়নি।’ ১৯৭৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর রাষ্ট্র ক্ষমতার প্রভাব-প্রলোভন-হুমকি কাজে লাগিয়ে গঠিত হয়েছিল বিএনপি নামের দলটি। এই দল গঠনের কয়েকদিন পর আমি চাঁদপুরে একটি অনুষ্ঠানে গিয়েছিলাম। দশকের পর দশক আমজনতার স্বার্থ নিয়ে রাজনীতি করেছেন, নির্যাতন...

জিয়ার মাজার: ইতিহাসের সত্য বেরিয়ে আসছে

ড. সেলিম মাহমুদ: চন্দ্রিমা উদ্যানে সেনাশাসক জিয়ার লাশ দাফন না করে অন্য এক ব্যক্তির লাশ দাফন করে সেখানে লালসালু উপাখ্যানের মতো জিয়ার মাজার স্থাপনের যে ঘটনা তৎকালীন বিএনপি সরকার ঘটিয়েছিল, চল্লিশ বছর পর আজ ইতিহাস কথা বলতে শুরু করেছে। জাতির কাছে উন্মোচিত হচ্ছে চন্দ্রিমার লালসালু উপাখ্যানের ইতিবৃত্ত। জাতি আজ জানতে পারছে ইতিহাস- ‘ye shall know the truth, and ...

ক্যাম্পাসকে অস্থিতিশীল করার নোংরা রাজনীতি করছে বিএনপি

বিএনপি ঠুনকো অজুহাতে ক্যাম্পাসকে অস্থিতিশীল করার নোংরা রাজনীতি করছে বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আজ সোমবার (৩০ আগস্ট) নিজের সরকারি বাসভবনে ব্রিফিংকালে এই অভিযোগ করেন তিনি। ওবায়দুল কাদের বলেন, 'আমরা আগেই আশঙ্কা করেছিলাম ক্যাম্পাসগুলো উত্তপ্ত করতে ষড়যন্ত্রের জাল বোনা হচ্ছে। পরাশ্রয়ী আন্দোলননির্ভর বি...

রাঙ্গুনিয়ায় জিয়াউর রহমানকে কবর দিতে দেখেনি কেউ

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, 'আমি রাঙ্গুনিয়ার মানুষ। রাঙ্গুনিয়ার পোমরা ইউনিয়নে নাকি জিয়াউর রহমানকে প্রথম কবর দেওয়া হয়েছিল। সেখানে জিয়াউর রহমানকে কবর দিতে কেউ দেখেনি, একটা বাক্স দেখেছিল মাত্র।' শুক্রবার দুপুরে চট্টগ্রাম (উত্তর) জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে প্রেস ক্লাবের বঙ্গবন্ধু হলে ১৫ ও ২১ আগস্টে নিহতদের স্মরণে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ...