শেখ হাসিনার কারাবরণ দিবস: ইতিহাসের কালো অধ্যায়

এম নজরুল ইসলামঃ  বাংলাদেশের ইতিহাসে আলোয় মাখা দিন যেমন আছে, তেমনি আছে অনেক কালো দিন। কালো দিন শুধু বলি কেন, অন্ধকারাচ্ছন্ন একটা দীর্ঘ সময় পেরিয়ে আসতে হয়েছে আজকের বাংলাদেশকে। ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বরের সূর্য এক উদ্ভাসিত নতুন দিনের সূচনা করেছিল। আবার ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের সূর্যটা কেউ যেন ঢেকে দিয়েছিল। এরপর তো ২১ বছরের অন্ধকার। এমনি আরেক অন্ধকার নেমে এসে...

১৬ই জুলাই বাংলাদেশের একটি কালো আধ্যায়

ড. প্রণব কুমার পান্ডে:  ১/১১ বাংলাদেশের ইতিহাসে একটি 'কালো দিবস' হিসেবে বিবেচিত হয় কারণ অসাংবিধানিক একটি সরকার এই দিন ক্ষমতা দখল করে প্রায় দুই বছর ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত থাকে। তাদের এই দুই বছর ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত থাকার সময় কালে তারা বিরাজনীতিকরণ পরিকল্পনা গ্রহণ করে তা বাস্তবায়ন করতে চেয়েছিল মাইনাস টু ফর্মুলার মাধ্যমে। অর্থাৎ দুই প্রধান দলের নেত্রীকে দলের নেতৃত্ব থে...

এক এগারো আন্দোলনের নেপথ্যের নায়ক শেখ রেহানা

মিজানুর হক খান: বঙ্গবন্ধু পরিবারের সবচেয়ে দুঃখী মানুষটির নাম শেখ রেহানা । ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার সময় বড় বোন শেখ হাসিনা , শেখ রেহানাকে জার্মানিতে নিয়ে আসার কারনে প্রাণে বেঁচে গিয়েছিলেন । শেখ হাসিনার উসিলায় মহান আল্লাহতালা শেখ হাসিনার জন্য শেখ রেহানাকে বাঁচিয়ে রেখে ছিলেন। বাবা-মা,ভাই সবাইকে হারিয়ে দুই বো...

১/১১-এর সরকার ও শেখ হাসিনার কারামুক্তি

মমতাজউদ্দীন পাটোয়ারীঃ ফিরে এলো ১১ জুন । ২০০৮ সালের এই দিনে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা ৩৩১ দিন কারাভোগের পর মুক্তি লাভ করেন। তখন ক্ষমতায় ছিল ১/১১-এর সেনাসমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকার। অনেকে এটিকে ইয়াজউদ্দিন-মইনুদ্দিন-ফখরুদ্দিনের সরকার বলে থাকেন। ইয়াজউদ্দিন ছিলেন রাষ্ট্রপতি, মইনুদ্দিন সেনাপ্রধান এবং ফখরুদ্দিন ‘তত্ত্বাবধায়ক সরক...

৭ মে ২০০৭ঃ গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠায় নতুন সংগ্রাম শুরুর দিন

এম. নজরুল ইসলাম:  বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসে বড় পরিবর্তনগুলোর একটি ঘটেছিল ২০০৭ সালের ১১ জানুয়ারি। আবির্ভাব ঘটেছিল কথিত ওয়ান-ইলেভেনের। ২০০৭ সালে একটি চেপে বসা অপশক্তি সেই সময়ের বাস্তবতায় প্রবল প্রতাপে দেশ শাসন করে।গণতন্ত্র তখন রুদ্ধ। সেই চেপে বসা শাসকদের বিবেচনায় রাজনীতি তখন যেন ছিল গর্হিত অপরাধ। আর সে কারণেই রাজনীতিক পরিচয় দিতেও যেন অনেকে কুণ্ঠিত ছি...

৭ মে এর রাজনৈতিক তাৎপর্য

১৯৯১ সাল থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত তত্ত্বাবধায়ক সরকার মোটামুটি ভাবে গ্রহণযোগ্য থাকলেও বিএনপি'র সময়কালে প্রথমে প্রধান বিচারপতির বয়স বাড়ানো এবং পরবর্তীতে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি ইয়াজউদ্দিন আহমেদের বিভিন্ন বিতর্কিত কর্মকাণ্ড তত্ত্বাবধায়ক সরকারকে একেবারে বিতর্কিত করে তুলে।

ইতিহাসের গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা ৭ মে

হত্যার প্রচেষ্টা ও হুমকির মধ্যেও শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। করোনাকবলিত হয়েও বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে এটা নিশ্চিত। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তিকে ঐক্যবদ্ধভাবে সকল অশুভ শক্তির মোকাবেলা করতে হবে। সামনে বাধা এলে তা বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ধারণ করে ধৈর্যের সঙ্গে মোকাবেলায় সচেষ্ট থাকতে হবে। ’৭১-এর পরাজিত শক্তিরা বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা ...

ফিরে দেখা, শ্রাবণ দিনে শেখ হাসিনার কারাবরণ

আফজাল হোসেনঃ করোনা অতিমারির এক নিদানকাল চলছে। শ্রাবণের বারিধারা আর স্বজনহারাদের অশ্রু আজ একাকার। এমনই এক শ্রাবণ দিনে দেশবিরোধীরা জাতির কাঁধে চাপিয়ে দিয়েছিল ইতিহাসের সবচেয়ে ভারী লাশের বোঝা। ১৫ আগস্ট কালরাত্রিতে জাতির পিতাকে হত্যার উদ্দেশ্যে খুনিরা ছুটে গিয়েছিল ধানমন্ডির বত্রিশ নম্বরে। কাপুরুষোচিত আদিম উন্মত্ততায় হত্যা করে স্বাধীন দেশের স্থপতিকে। এ ট্র্যাজেডির ...

শেখ হাসিনার সেই চিঠি আর গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের শপথ

মানিক লাল ঘোষ:বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক অগ্রযাত্রা ব্যাহত করা, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধ্বংস করে স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশকে আবারো পাকিস্তানের ভাবধারায় ফিরিয়ে নেয়ার ষড়যন্ত্র ওদের অনেক দিনের। স্বাধীনতার মহান স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার মধ্য দিয়ে সেই ষড়যন্ত্রের সূত্রপাত। ১৯৮১ সালের ১৭ মে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রিয় জন্মভূমিতে ফিরে এসে আওয়ামী লীগকে পুনর্গঠনের মা...

১৬ জুলাই বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি দেশরত্ন শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবসঃ গণতন্ত্রকে শৃঙ্খলিত করার অপপ্রয়াস

পংকজ দেঃ দেশরত্ন শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস আলোচনা করার পূর্বে একজন শেখ হাসিনা থেকে গণতন্ত্রের মানস কন্যা,জনগণের ভালোবাসায় সিক্ত একজন জননেত্রী ও বর্তমান বিশ্বের সফলতম প্রধানমন্ত্রীদের একজন হয়ে ওঠা ও বিশ্বমানবতার জননী হিসেবে আত্মপ্রকাশ করার সুদীর্ঘ ইতিহাস উপস্থাপন করা প্রয়োজন। আজকে তাঁর কারাবন্দী দিবসে তিনি যে, অন্যায়,অত্যাচার,জুলুম,নির্যাতন,সন্ত্রাস,চাঁদাবাজ ও সর্বোপরি...

রুদ্ধ গণতন্ত্রের মুক্তির দিন আজ

আজ ১১ জুন। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি, জননেত্রী শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস। দীর্ঘ ১১ মাস কারাভোগ শেষে ২০০৮ সালের এই দিনে জাতীয় সংসদ ভবন এলাকার বিশেষ কারাগার থেকে মুক্তি পান তিনি। তাঁকে মুক্তি দিয়েই নির্বাচনের দিকে এগোতে হয় অন্তর্বর্তীকালীন সরকারকে। বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসে বড় পরিবর্তনগুলোর একটি ঘটেছিল ২০০৭ সালের ১১ জানুয়ারি। আবির্ভাব ঘটেছিল কথিত ও...

এক-এগারোর ঝড় এবং উত্তাল সাগর পাড়ি দেওয়া শেখ হাসিনার নৌকা

২০০৭ সালে এক অনাকাঙ্ক্ষিত ঝড়ের কবলে পড়ে বাংলাদেশ। বিএনপি-জামায়াত জোটের দুর্নীতি, লুটপাট ও ক্ষমতা দখলের অব্যাহত প্রচেষ্টার পরিপ্রেক্ষিতে এক উত্তাল পরিবেশ সৃষ্টি হয় রাজনৈতিক অঙ্গনে। ১১ জানুয়ারি বিকাল থেকে পর দ্রুত ঘটতে থাকে একের পর এক ঘটনা। বেসামরিক ও সুশীল সমাজের ছদ্মবেশে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা কুক্ষিগত করে সামরিক বাহিনীর কতিপয় সদস্য। মাইনাস টু ফর্মুলার নামে দেশের বৃহত্তম ...