বিএনপি জামায়াত শাসনামল: কোটি কোটি টাকার সিগারেট চোরাচালান করতো অর্থমন্ত্রী সাইফুর রহমানের ছেলে ও জামাতা

314

Published on নভেম্বর 30, 2022
  • Details Image

২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার গঠনের পর থেকে শত শত একর সরকারি বনাঞ্চলের দখল নিতে শুরু করে তৎকালীন অর্থমন্ত্রী সাইফুর রহমানের ছেলে শফিউর রহমান ও কায়সার রহমান। অন্যদিকে নিজস্ব ক্যাডার বাহিনী তৈরি করে মৌলভীবাজার ও সিলেট এলাকায় সন্ত্রাস চালাতে থাকে মন্ত্রীর আরেক ছেলে নাসের রহমান। তারেক রহমানের সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক থাকায় অবাধে কমিশন বাণিজ্য করে অবৈধভাবে কোটি কোটি টাকা উপার্জন করে তারা।

২০০৭ সালের ২৩ জুন প্রথম আলোর সংবাদ থেকে জানা যায়, প্রভাব খাটিয়ে পণ্য চোরাচালানেও জড়িয়ে পড়েছিল সাইফুর রহমানের ছেলে শফিউর রহমান এবং জামাতা আমের সিদ্দিকী। ২০০৫ সালের শুরু থেকে ২০০৬ সালের আগস্ট পর্যন্ত তাদের প্রতিষ্ঠান আমদানি করা ২৩টি কনটেইনার পণ্য ছাড় করে। সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টরা জানান, সাইফুর রহমানের ছেলের চোরাই পণ্য আনার কথা সবাই জানতো। কিন্তু কাস্টম বিভাগ সাইফুর রহমানের অধীনে থাকায় তার ছেলের বিষয়টি নিয়ে কেউ কিছু বলার সাহস পেতো না।

জিজ্ঞাসাবাদে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর জানায়, শফিউর রহমান বাবু সিগারেট চোরাচালানে জড়িত ছিল। বাবুর একটি চালান কমলাপুর আইসিডিতে ধরা পড়েছিল। সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার ইব্রাহিম ফাতেমী এবং র্যাবের মেজর ওয়াসিউর রহমান চৌধুরী এই ঘটনার তদন্ত করেন এবং স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীকে সেসময় অভিহিত করেছিলেন।

সিআইডি জানায়, ২০০৬ সালের ৩ আগস্ট এক কোটি টাকার একটি সিগারেটের চালান ধরা পড়ে। টাচ ল্যাম্প আনার কথা বলে সুরভী ইন্টারন্যাশনালের নামে এই চোরাই পণ্য আনা হয়। পরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সুরভী ইন্টারন্যাশনাল নামে কোনো প্রতিষ্ঠান খুঁজে পায়নি। এরপর আরো কয়েকটি চালান আটক হয় কমলাপুল রেলস্টেশন থেকে। ১৮ জুলাই পণ্য আসার পর, ২৪ জুলাই সকালে সিঅ্যান্ডএফ প্রতিষ্ঠান হিসেবে সাব গ্লোবাল ট্রেড পণ্যটি ছাড় করাতে কাগজপত্র জমা দেয়। কিন্তু দুপুরে তারা জানায়, পণ্যটি তারা ছাড় করাবে না। ২০০৫ সালের জানুয়ারি থেকে এভাবে ২৩ বার কনটেইনারে চোরাই পণ্য আমদানি করেছে শফিউর রহমানের প্রতিষ্ঠান। প্রতিবারই ভিন্ন ভিন্ন প্রতিষ্ঠানের নামে এসব কনটেইনার আমদানি করা হয়। কিন্তু পণ্য খালাস করেছে সাব গ্লোবাল ট্রেড নামের একটি সিঅ্যান্ডএফ প্রতিষ্ঠান।

প্রতিষ্ঠানটির মালিক আমজাদ হোসেন সাইফুর রহমানের ছেলে শফিউর ও জামাতা আমের সিদ্দিকীর কর্মচারী। আমজাদের আগে খোরশেদ নামের একজন শফিউর এবং আমেরের এসব ব্যবসা দেখভাল করতো।

Live TV

আপনার জন্য প্রস্তাবিত