২০০১ থেকে ২০০৬: স্পিকারের চেয়ারে বসে পাঁচ শতাধিক নিয়োগ বাণিজ্য করেন জমিরউদ্দিন সরকার

950

Published on নভেম্বর 28, 2022
  • Details Image

২০০১ থেকে ২০০৬ সাল পর্যন্ত বিএনপি-জামায়াত সরকারের আমলে প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া প্রত্যক্ষভাবে তার দুই ছেলে তারেক ও কোকোকে হাজার হাজার কোটি টাকা দুর্নীতিতে সহায়তা করেন। এমনকি তার ভাগ্নেরাও সরকারের কোটি কোটি টাকা লুটপাট করে। একই সঙ্গে সরকারের উচ্চ পর্যায়ে থাকা বিএনপির নেতা, মন্ত্রী-এমপিরাও হরিলুট শুরু করে। এমনকি জাতীয় সংসদ সচিবালয়েই পাঁচ শতাধিক নিয়োগ বাণিজ্য করেন খালেদা জিয়ার স্পিকার জমিরউদ্দিন সরকার। জমিরউদ্দিনের এসব দুর্বলতাকে কাজে লাগিয়ে তারেক রহমান সংসদ সচিবালয় থেকে গাড়ির তেল পর্যন্ত কিনে নিতেন অবৈধভাবে।

২০০৭ সালের ২৭ জানুয়ারি দৈনিক সমকালের প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, কোনো নিয়মের তোয়অক্কা না করে জাতীয় সংসদে তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী নিয়োগে রেকর্ড করেছেন স্পিকার জমিরউদ্দিন সরকার। এই নিয়োগের সংখ্যা পাঁচশ ছাড়িয়ে গেছে। এমনকি সরকারের শেষের দিকে (২০০৬ সাল) সংসদ কার্যকর না থাকলেও দেড়শ কর্মচারী নিয়োগ দেন তিনি। প্রতি নিয়োগে পাঁচ লাখ টাকা করে লেনদেন হয় তার অফিসের সহকারী ও ব্যক্তিগত কর্মকর্তার মাধ্যমে।

এমনকি মাস্টাররোল থেকে চাকরি স্থায়ীকরণের ক্ষেত্রে হাইকোর্টের নির্দেশনায় বলা ছিল, ১৯৯৪ সালের আগে থেকে যারা চাকরি করছে তাদের স্থায়ী করতে হবে। তবে আদালতের সেই আদেশকে অমান্য করে ১০১ জনকে স্থায়ীভাবে চাকরিতে নিয়োগ দেন জমিরউদ্দিন। এমনকি সরকারের মেয়াদ শেষেও ১৯৪ জনকে তৃতীয়, চতুর্থ, ড্রাইভার, মালি, ব্যক্তিগত সহকারী প্রভৃতি পদে নিয়োগ দেওয়া হয়। এমনকি নিজ দলীয় ডেপুটি স্পিকারকে পাশ কাটিয়েই এসব নিয়োগ দেওয়ায় দ্বন্দ্ব দেখা দেয়। পরে খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা রাজাকার সালাউদ্দিন চৌধুরী বিষয়টি মীমাংসা করে দেয়।

এসব নিয়োগে খোদ স্পিকারের বিরুদ্ধে মোট দশ কোটি টাকার ওপরে নিয়োগ বাণিজ্য, দলীয়করণ এবং স্বজনপ্রীতির অভিযোগ ওঠে। এব্যাপারে ডেপুটি স্পিকার আখতার হামিদ সিদ্দীকি বলেন, এসব নিয়োগে তিনি জড়িত নন। কীভাবে এতো নিয়োগ দেওয়া হয়েছে, তাও তিনি জানেন না।  এমনকি এসব নিয়োগ নিয়ে তৎকালীন রাজনৈতিক দলগুলো সংসদে আলোচনা করতে চাইলেও, স্পিকারের তাদের সেই সুযোগ দেননি বলেও অভিযোগ করেন বিরোধী দলীয় নেতারা।

সাবেক স্পিকাররা এ বিষয়ে বলেন, জমিরউদ্দিন সরকার স্পিকারের পদকে কলঙ্কিত করেছেন। দলীয় বিবেচনায় এবং নিয়োগ বাণিজ্যের জন্য প্রতিবছর ধাপে ধাপে তিনি পাঁচ শতাধিক নিয়োগ সম্পন্ন করেন। সংসদের জন্য এটি একটি ন্যাক্কারজনক ঘটনা।

Live TV

আপনার জন্য প্রস্তাবিত