প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী পরিকল্পনায় সকল সঙ্কটকে পরাজিত করবে বাংলাদেশ

2104

Published on জুলাই 21, 2022
  • Details Image

করোনার করালগ্রাস, এরপরেই রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ, মার্কিন নিষেধাজ্ঞা, সর্বোপরি বহুমুখী দুর্যোগে পতিত হয়েছে পৃথিবীর সামাজিক-অর্থনৈতিক প্রেক্ষাপট। ইউরোপ-আমেরিকার শক্তিশালী রাষ্ট্রগুলোও নানাবিধ সংকটে নিমজ্জিত। যার কিছুটা প্রভাব পড়তে শুরু করেছে আমাদের ওপরও। তবে পরিস্থিতি মোকাবিলায় সতর্ক ভূমিকা গ্রহণ করেছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গত কয়েক বছরের সব দুর্যোগের আগে ও পরের ঘটনাগুলো খেয়াল করুন। জনগণকে আগলে রাখতে সর্বোচ্চ দূরদর্শী পদক্ষেপ নিয়েছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।

ঘনবসতিপূর্ণ এই বাংলাদেশে করোনার থাবায় মৃত্যুর মিছিল হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু পশ্চিমা বিশ্বে করোনার প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ার সাথে সাথেই দেশবাসীকে নিয়মিত সতর্ক করতে শুরু করেন প্রধানমন্ত্রী। জারি করেন বিধি নিষেধ। দীর্ঘ সময় লক ডাউনে অসহজায় মানুষদের ঘরে ঘরে পৌঁছে দেন ওষুধ, খাদ্য ও সুরক্ষা সামগ্রী। রাষ্ট্রীয় অর্থায়নে সবার জন্য নিশ্চিত করেন ভ্যাকসিন। বঙ্গবন্ধুকন্যার ডাকে সাড়া দিয়ে, নিজিদের প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে, গণমানুষের পাশে দাঁড়ায় আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

অথচ এই পুরো সময়জুড়ে অন্য কোনো রাজনৈতিক দল বা টকশোতে বড় বড় কথা বলা কোটিপতিদের কাউকেই দেখা যায়নি কোথাও। এমনকি বিএনপির পক্ষ থেকে উল্টো ধর্মীয় উস্কানি ছড়িয়ে মানুষকে ভ্যাকসিন নিতে নিরুৎসাহিত করা হয়েছে। মহামারির মধ্যেও উগ্রবাদীদের গুজব ছড়াতে সহযোগিতা করে, সাধারণ মানুষের প্রাণনাশ করে, ক্ষমতা দখলের পরিকল্পনায় ব্যস্ত ছিল বিএনপি-জামায়াত গং।

তবে ডিজিটাল মাধ্যম ব্যবহার করে এসব ষড়যন্ত্র মোকাবিলা, জনগণকে সতর্কীকরণ, এমনকি প্রণোদনার অর্থ ও সাহায্য বিতরণ করতে সমর্থ হন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এমনকি দেশের শিল্প, বাণিজ্য, ক্ষুদ্র ব্যবসাসহ সব খাতে উদ্যোক্তাদের পাশে দাঁড়িয়ে অর্থনীতিকে রক্ষা করে সরকার। একারণে ব্যর্থ হয় উগ্রবাদীদের ষড়যন্ত্র। এছাড়াও নানাবিধ প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও প্রতিকূলতা কাটিয়ে আবার ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ।

কিন্তু রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সম্প্রতি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে পুরো ইউরোপ। ফলে বাংলাদেশের আমদানি-রফতানি খাতসহ সামগ্রিক অর্থনীতিতে এর নেতিবাচক প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। ইউরোপের দেশগুলোতেও শুরু হয়েছে বিদ্যুৎ-গ্যাস-কয়লার সংকট। চরম অর্থনৈতিক সংকটের মুখে পুরো বিশ্ব। কিন্তু বাংলাদেশ যাতে এর ভুক্তভোগী না হয়, সেজন্য আগে থেকেই সতর্কতামূলক উদ্যোগ নিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী। বৈশ্বিক মন্দা ও করোনাকালের মতো দুর্যোগের মধ্যে বঙ্গবন্ধুকন্যার দূরদর্শিতা যেভাবে বাংলাদেশের মানুষকে বাঁচিয়ে দিয়েছে, এবার আবারও এই বৈশ্বিক ধসের কবল থেকে তিনি দেশকে রক্ষা করতে আগাম সতর্কতামূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করছেন।

শেখ হাসিনার হাত ধরেই নানাবিধ দুর্যোগে-দুর্বিপাকে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে বাংলাদেশ। তার ব্যয় সংকোচন ও সঞ্চয় নীতি বাস্তবায়নের মাধ্যমে এবারও পরিস্থিতি সামাল দেবে বীর বাঙালি। কোনোরকম গুজবে অস্থির হবেন না, ধৈর্য ধরুন, সরকারের নির্দেশনা মেনে চলুন, আমাদের অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকবে। শেখ হাসিনা পেরেছেন, শেখ হাসিনাই পারবেন।

Live TV

আপনার জন্য প্রস্তাবিত