দেশের সকল সঙ্কটে-দুর্যোগে মানুষের একমাত্র ভরসা শেখ হাসিনা ও তার দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ

373

Published on জুন 29, 2022
  • Details Image

বাংলাদেশ নদীমাতৃক দেশ এবং নদীবিধৌত সমতল ব-দ্বীপ অঞ্চল। বাংলাদেশের মানুষকে সব সময় প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা করেই চলতে হয়। সম্প্রতি সিলেট বিভাগসহ নেত্রকোনা ও অন্যান্য জেলার বন্যায় দেশের সব নদ-নদীর পানি বাড়ছে। প্রতিদিন প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন এলাকা। রাস্তাঘাট, হাট-বাজার, লোকালয় সবখানেই পানি। নেই বিদ্যুৎ সংযোগ। শেষ সম্বলটুকুও ভেসে যাচ্ছে বন্যার পানিতে, জীবন বাঁচাতে অর্থকরির চিন্তা বাদ দিয়ে একটু আশ্রয়ের খোঁজে , পায়ের নিচের মাটির খোঁজে যেতে হচ্ছে ঘর ছেড়ে। প্রাণহানির ঘটনাও ঘটছে নিয়মিতই । ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের নেয়া হচ্ছে নিরাপদ আশ্রয়কেন্দ্রে।

আমাদের হাওড় অধ্যুষিত সিলেট, নেত্রকোনা, সুনামগঞ্জের এ বন্যা পরিস্থিতিতে সরকারের পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্তদের সার্বক্ষনিক পাশে আছে ক্ষমতাসীন দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ। সরকার বা বিরোধী দল, যেখানেই থাকুক আওয়ামী লীগ, দলের নেতাকর্মীরা সর্বদা যে কোন সংকটে দেশের মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন, তাদের জন্য কাজ করেছেন। ঘূর্ণিঝড়, বন্যা বা অন্য যেকোনো দুর্যোগে সব সময় মানুষের পাশে থাকে বঙ্গবন্ধুর দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ।

এই জাতীয় সঙ্কটেও শেখ হাসিনা সরকার বন্যা কবলিত মানুষের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে। বাড়িয়ে দিয়েছে সহায়তার হাত। সরকার বানভাসি মানুষকে এখন পর্যন্ত মোট বরাদ্দ দিয়েছে ৭ কোটি ১১ লক্ষ টাকা। শিশুখাদ্য ও গোখাদ্য ক্রয় বাবদ বরাদ্দ দিয়েছে ৮০ লক্ষ টাকা। তাছাড়া চাল ও শুকনো খাবার বরাদ্দ দিয়েছে যথাক্রমে ৫৮২০ মেট্রিক টন ও ১ লক্ষ ২৩ হাজার ২০০ প্যাকেট।

আওয়ামী লীগসহ তার অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরাও বন্যার্তদের পাশে দাঁড়িয়েছে। তারা নিজ নিজ অবস্থান থেকে বন্যাকবলিত মানুষের মাঝে ওরস্যালাইন, বিশুদ্ধ পানি, শুকনো খাবার ও ওষুধ বিতরণ করছেন। যে সব এলাকায় রাস্তাঘাট ডুবে গেছে সেখানে চলাচলের জন্য পৌঁছে দেয়া হচ্ছে নৌকা। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধভাবে বন্যাকবলিত মানুষের পাশে থাকবে।

তাছাড়া বন্যাকবলিত মানুষকে উদ্ধার, নিরাপদ আশ্রয়স্থল নিশ্চিত এবং বিশুদ্ধ পানি এবং খাবার নিশ্চিত করতে নিজের জীবন বাজি রেখে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করছে সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী, কোস্টগার্ড এবং ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরাও। এ পরিস্থিতিতে সব সময় সার্বিক খোঁজখবর ও প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দিচ্ছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা।

গত ২১ জুন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হেলিকপ্টারে ‘লো ফ্লাই মোড’ এ নেত্রকোনা, সুনামগঞ্জ ও সিলেটের বন্যা পরিস্থিতি ঘুরে দেখেন। আওয়ামী লীগের রাজনীতি হচ্ছে মানবতার রাজনীতি, কল্যাণ, সমৃদ্ধি ও উন্নয়নের রাজনীতি।

এই সরকারের আমলে ত্রাণের জন্য কিংবা খাদ্যের জন্য কষ্ট পাবে না কোন মানুষ। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ সকল পরিবারকে পুনর্বাসন করবেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যাদের ঘরবাড়ি নষ্ট হয়েছে তাদের ঘরবাড়ি পুনঃনির্মাণের জন্যে সরকারের পক্ষ থেকে করা হবে সর্বোচ্চ সহায়তা। এছাড়া বন্যার পানি কমে গেলে ধান উৎপাদনেও পর্যাপ্ত সহায়তা দেয়া হবে।

আওয়ামী লীগ ও বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা দিন রাত মানুষের প্রতি কর্তব্য পালন করে যাচ্ছেন। বঙ্গবন্ধুর ত্যাগের মন্ত্রে দীক্ষিত হওয়া বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রতিটি নেতা-কর্মী জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষের তরে নিজের জীবন বিলিয়ে দিয়েছে।

Live TV

আপনার জন্য প্রস্তাবিত