বিএনপি জামাত ক্ষমতায় গিয়ে লুটপাট করে নিজেদের ভাগ্য পরিবর্তন করতে চায়

392

Published on জানুয়ারি 18, 2023
  • Details Image

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেছেন, আজ দেশের মানুষের ভাগ্যের যে পরিবর্তন হয়েছে এ কথা যারা মানে না, যারা দেশের এত উন্নয়ন চোখে দেখেনা, পদ্মা সেতুর কারণে দেশ যে আন্তর্জাতিকভাবে একটি অবস্থানে গিয়ে দাঁড়িয়েছে এটি যারা দেখেনা তারাই দেশকে নিয়ে ষড়যন্ত্র করছে। এ বিএনপি জামাত দেশের উন্নয়ন দেখে লজ্জা পেয়ে মিথ্যাচার করে। এরা দেশবিরোধী অপশক্তি। এরা এখনো শেখ হাসিনাকে হত্যার ষড়যন্ত্র করে। এরা কখনো দেশের মানুষের শান্তি চায় না। এরা চায় শুধুমাত্র নিজেদের স্বার্থ হাসিল করতে। নিজেদের পকেট ভারি করতে।এরা আবার ক্ষমতায় গিয়ে লুটপাট করে নিজেদের ভাগ্য পরিবর্তন করতে।

মঙ্গলবার (১৭ জানুয়ারি) বিকেলে মাদারীপুরের শিরখাড়া ইউনিয়নে মাদারীপুর জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত উন্নত সমৃদ্ধ ও অসাম্প্রদায়িক স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বিএনপি জামাত পাকিস্তানিদের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে দেশকে পাকিস্তানি রাষ্ট্র বানাতে চায়। এরা দেশের স্বাধীনতাকে মানতে চায়না। আমাদের এ দেশ হলো অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ, এটি আমাদের হাজার বছরের ঐতিহ্য।আমাদের দেশে কোন ধর্মের ভেদাভেদ নেই। এরা আমাদের এই ঐতিহ্যকে ধ্বংস করে দেশকে সাম্প্রদায়িক রাষ্ট্রে পরিনত করতে চায়। দেশে জঙ্গিবাদের উত্থান ঘটিয়ে দেশকে পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের মত করাই এদের স্বপ্ন।

তিনি আরও বলেন, শেখ হাসিনার অঙ্গীকার হলো মানুষকে ভালোবাসো, মানুষের জন্য কাজ করো, দেশের জন্য কাজ করো। আমরা দেশের প্রতিটি নাগরিককে ভালোবাসি। আমরা চাই দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তনের মধ্যে দিয়ে জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়তে। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা পরপর তিনবার প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নিয়ে দেশের মানুষের ভাগ্যের উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি দক্ষতার সঙ্গে জাতির পিতার সুযোগ্য সন্তান হিসেবে বাংলাদেশকে পরিচালনা করে উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয় নিয়ে সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। আজকে বাংলাদেশের দরিদ্র্য জনগোষ্ঠীর ভাগ্যের পরিবর্তনের জন্য তিনি সর্বোচ্চ কাজ করছেন। শেখ হাসিনা বাংলাদেশের দরিদ্র্য জনগোষ্ঠীর হার ৪০ ভাগ থেকে ২০ ভাগে নামিয়ে এনেছেন। এটি শেখ হাসিনার সরকারের সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ অবদান।

বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, দেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনের জন্য জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তার জীবনের শ্রেষ্ঠ সময় গুলো কারাগারে বন্দী থেকে লড়াই সংগ্রাম করেছেন। মৃত্যু ভয় কে উপেক্ষা করে তিনি লড়াই সংগ্রাম করেছেন। কারাগারের পাশে তার জন্য কবর খোঁড়া হয়েছিল।সেখানে ফাঁসি দিয়ে তাকে কবর দেওয়া হবে বলে। তারপরও তিনি আপোষ করেননি। তিনি কারো কাছে মাথা নত করেননি। তার স্বপ্ন ছিল দেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করা। তার স্বপ্ন ছিলো একটি স্বাধীন রাষ্ট্র গঠন করা।তিনি সব সময় চাইতেন দেশের মানুষ খেয়ে পড়ে ভালো থাকুক। বাঙালিরা সম্মানিত জাতি হিসেবে বিশ্বের দরবারে মাথা উঁচু করে দাড়াবে।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার যুদ্ধে পরাজিত পাক হানাদার বাহিনীর দোষরদের ষড়যন্ত্রের কারণে দেশবিরধী যুদ্ধাপরাধী, ঘাতক, দালাল রাজাকার তাকে তার লক্ষ পূরণ করতে দেয়নি। অত্যন্ত নির্মমভাবে তাকে ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যা করেছে। এরপরে তার সুযোগ্য সন্তান পিতার স্বপ্ন পূরণ করার জন্য মৃত্যু ভয় কে উপেক্ষা করে দেশে ফিরে আসেন। দেশে ফিরে তিনি আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব গ্রহণ করেন। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ও তলিয়ে যাওয়া দেশকে উদ্ধারের জন্য শেখ হাসিনা দীর্ঘ সময় লড়াই সংগ্রাম করেছেন।পরবর্তীতে দেশের জনগণের ভোটের মাধ্যমে তিনি ক্ষমতায় আসেন।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা দীর্ঘ সময় তার পিতৃহত্যার বিচার চাইতে পারেননি। খুনি জিয়া হত্যাকারীদের রক্ষা করার জন্য সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছিল।জিয়া চেয়েছিলো জাতির পিতার হত্যাকারীদের বিচার যাতে না হয়। এর জন্য সে আইনও জারি করেছিলো। শেখ হাসিনা মৃত্যুর মুখোমুখি দাঁড়িয়ে তাদের সঙ্গে কোন আপোষ করেননি। তিনি সেনা ছাউনি থেকে গণতন্ত্রকে উদ্ধার করে এনেছিলেন। আজ দেশে গণতান্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। জাতির পিতার অসমাপ্ত কাজকে সম্পন্ন করেছেন শেখ হাসিনা।

মাদারীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহাবুদ্দিন আহম্মেদ মোল্লার সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক কাজল কৃষ্ণ দে'র সঞ্চালনায় জনসভায় উপস্থিত ছিলেন মাদারীপুর সদর পৌরসভার মেয়র খালিদ হোসেন ইয়াদ সহ জেলা, উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।

Live TV

আপনার জন্য প্রস্তাবিত