রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন মেয়র এর উদ্যোগে বর্ণাঢ্য আয়োজনে শেখ রাসেলের জন্মদিন উদযাপিত

599

Published on অক্টোবর 19, 2021
  • Details Image

সোমবার সকাল সাড়ে ৯টায় নগর ভবনে বঙ্গবন্ধু ও শেখ রাসেলের প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন রাসিক মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন। পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে আলোচনা সভা ও বঙ্গবন্ধু ও শেখ রাসেল সহ ও তাঁর পরিবারের সকল শহীদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে শিশুদের নিয়ে বেলুন ও পায়রা উড়ানো এবং জন্মদিনের কেক কাটেন সিটি মেয়র। এরপর মেয়রের নেতৃত্বে নগরীর বিভিন্ন স্কুল শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে বের করা হয় বর্ণাল্য আনন্দ র‌্যালি। র‌্যালিটি নগর ভবনের সামনে থেকে শুরু হয়ে শহীদ কামারুজ্জামান চত্বর ঘুরে পুনরায় নগরভবনের সামনে এসে শেষ হয়।

অনুষ্ঠানে রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি, রাসিক মেয়র বলেন, আজকে সারাদেশে জাতীয়ভাবে শহীদ শেখ রাসেলের জন্মদিন উদযাপিত হচ্ছে। যে ছোট্ট শিশুকে কোন পাপ ষ্পর্শ করেনি, তাকেও ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঘাতকেরা বাঁচতে দেয়নি। শেখ রাসেল বেঁচে থাকলে দেশ ও জাতিকে অনেক কিছু দিতে পারবো। আজকের দিনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, শেখ রাসেল ও বঙ্গবন্ধু পরিবারের শহীদদের শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করে সকলের আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি।

বিকেলে নগর ভবনে বঙ্গবন্ধু কর্ণার প্রাঙ্গণে আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে শতাধিক শিক্ষার্থীর হাতে শিক্ষা উপকরণ তুলে দেন রাসিক মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন। প্রত্যেককে একটি স্কুল ব্যাগ, একটি টিফিন বক্স ও ওয়াটার পট প্রদান করা হয়। এরপর মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও সন্ধ্যায় বর্ণিল আতশবাজি প্রদর্শন করা হয়।

রাসিক আয়োজিত কর্মসূচির মধ্যে আরো ছিল বাদ জোহর শেখ রাসেলের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে নগর ভবন ও সোনাদিঘি জামে মসজিদ সহ সকল মসজিদে বিশেষ মোনাজাত ও দোয়া মাহফিল এবং মন্দির, গির্জা, প্যাগোডা ও অন্যান্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে সুবিধাজনক সময়ে বিশেষ প্রার্থনা। এছাড়া দিবসটি উপলক্ষ্যে নগর ভবন আলোকসজ্জাকরণ ও ২টি ড্রপডাউন ব্যানার টাঙানো, নগরীর তিনটি গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ৬টি ওভারহেড ব্যানার লাগানো এবং ৩০টি সাধারণ ও ১০টি সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর কার্যালয়ে ব্যানার প্রদর্শন করা হয়। অনুষ্ঠানে সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর ও কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ অংশ নেন।

সকালে শেখ রাসেল দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, রাজশাহী মহানগর উদ্যোগে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়। কর্মসূচীসমূহের মধ্যে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে কুমারপাড়াস্থ দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। সকাল ১১টায় দলীয় কার্যালয়ের স্বাধীনতা চত্বরে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে শেখ রাসেল এর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়। সকাল ১১.৩০টায় দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, রাজশাহী মহানগরের সভাপতি ও রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মাননীয় মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন।

সভায় এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, ১৯৬৪ সালের আজকের এই দিনে জন্ম নিয়েছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেল। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টে বঙ্গবন্ধুর অতি আদরের কনিষ্ঠ পুত্রকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়। বঙ্গবন্ধু পরিবারের কেউ যাতে কোনদিন আর দেশ পরিচালনার দায়িত্বে আসতে না পারে সেই উদ্দেশ্যে শিশু রাসেলকেও হত্যা করে ঘাতকেরা। তিনি আরও বলেন, সাম্প্রদায়িক অপশক্তি আজ মাথা তুলে উঠতে চায়ছে। এই বাংলাদেশে তা কখনও সম্ভব নয়। উগ্র মৌলবাদীদের বিষদাঁত এখনই উপড়ে ফেলতে হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা তা কখনও সফল হতে দেবে না। উন্নত বাংলাদেশ গড়তে অদ্যবধি নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন তাঁরই কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা।

সভা সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, রাজশাহী মহানগরের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ডাবলু সরকার। এ সময় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ, রাজশাহী মহানগরের সহ-সভাপতি শাহীন আকতার রেনীসহ মহানগর আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও শেখ রাসেল দিবস উপলক্ষে বিকেলে ৯নং ওয়ার্ডবাসী আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে পাঁচ শতাধিক দুস্থ্য মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন রাসিক মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন। পাঁচ শতাধিক মানুষের প্রত্যেককে ৫ কেজি চাল, ১ ডাল কেজি ও ১ লিটার তেল প্রদান করা হয়।

এদিকে বিকেলে নগর ভবনে বঙ্গবন্ধু কর্ণারের সামনে শেখ রাসেল দিবস উপলক্ষে জনতা ব্যাংক কর্তৃক রাজশাহীতে ২০জন আদিবাসী কিশোরী ছাত্রীকে বাই-সাইকেল প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে ছাত্রীদের হাতে বাই সাইকেল তুলে দেন রাসিক মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন জনতা ব্যাংক লিমিটেডের পরিচালক অজিত কুমার পাল, রাসিকের ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল মোমিন ও সচিব মোঃ মশিউর রহমান। এ সময় সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলরবৃন্দ ও জনতা ব্যাংকের কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

শেখ রাসেল দিবস সোমবার দুপুরে তালামারী শহীদ মিনার চত্বরে বৃক্ষরোপণ করে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির শুভ উদ্বোধন করেন রাসিক মেয়র এ.এইচ. এম খায়রুজ্জামান লিটন। এই কর্মসূচির আওতায় বিভিন্ন প্রজাতির ২০০টি গাছের চারা রোপণ করা হয়। এ সময় শেখ রাসেলের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। এ সময় রাজশাহী মহানগর, থানা ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ও স্থানীয় কাউন্সিলরবৃন্দ সহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

Live TV

আপনার জন্য প্রস্তাবিত