শিবচরে লকডাউনে থাকা ৫০ বাড়িতে ত্রাণ পাঠিয়েছেন ইউপি চেয়ারম্যান

911

Published on এপ্রিল 28, 2020
  • Details Image

মাদারীপুরের শিবচরে নতুন করে এক করোনা রোগী শনাক্তসহ ৩টি বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টাইনের স্টিকার লাগানোসহ ৫০ বাড়ি লকডাউন ঘোষণা করেছে উপজেলা প্রশাসন। তাৎক্ষণিক চিফ হুইপের নির্দেশে ঢাকার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী কাঁঠালবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহসেন উদ্দিন সোহেল বেপারী তার নিজস্ব অর্থায়নে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকাসহ ৫০টি পরিবারের মাঝে খাবার সহায়তা পৌঁছে দিয়েছেন।

উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার কাঁঠালবাড়ী ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের একজন নারী (৫৫) কিছুদিন আগে বিক্রমপুর থেকে নিজের বাড়িতে আসেন। বাড়িতে আসার পর জ্বর অনুভব করলে শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসলে গত ২৪ তারিখ তার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়। পরে গতকাল সোমবার (২৭ এপ্রিল) রাতে রিপোর্ট আসলে দেখা যায় তিনি করোনা পজিটিভ।

এদিকে এ ঘটনা জানার পরে আজ মঙ্গলবার (২৮ এপ্রিল) দুপুরে শিবচর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. আসাদুজ্জামানের নেতৃত্বে শিবচর থানা পুলিশ করোনা আক্রান্তের বাড়িসহ ২টি বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টাইনের স্টিকার ও লাল কাপড় টানিয়ে আশপাশের মোট ৫০টি বাড়ি লকডাউন করে দিয়েছেন।

কাঁঠালবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহসেন উদ্দিন সোহেল বেপারী বলেন, ‘ওই নারীর করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক আমি সেখানে যাই। পরে আমিসহ উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ করোনা আক্রান্তের বাড়িসহ ২টি বাড়িতে হোম কোয়ারেন্টাইনের স্টিকার ও লাল কাপড় টানিয়ে আশপাশের মোট ৫০টি বাড়ি লকডাউন করে দিয়েছি। তাৎক্ষণিক চীফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরীর নির্দেশে আমার নিজস্ব অর্থায়নে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকাসহ ৫০টি পরিবারের মাঝে ১০ কেজি চাউল, ২ কেজি আলু, ২ কেজি পেঁয়াজ, ১ কেজি মুসুর ডাল, ১ কেজি লবণ ও ১ লিটার তেলসহ বিভিন্ন খাবার সহায়তা পৌঁছে দিয়েছি। এছাড়া কাঁচা বাজার ও ইফতারি সামগ্রী দেওয়ার কথা বলে এসেছি।

তিনি আরো বলেন, ‘আমার গ্রাম পুলিশ সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য নিয়োজিত করেছি। এবং আমি সার্বক্ষণিক মনিটারিং করছি যাতে অন্য ওয়ার্ডগুলোতে এ করোনা ভাইরাস ছড়াতে না পারে।’

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. শশাংক চন্দ্র ঘোষ বলেন, ‘আক্রান্ত নারীকে মাদারীপুর সদর হাসপাতালের আইসোলেশনে নেয়া হয়েছে। শিবচরে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৯ জনে দাঁড়িয়েছে। এদের মধ্যে মারা গেছেন ২ জন। সুস্থ হয়েছেন ১৩ জন।’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আসাদুজ্জামান বলেন, ‘করোনা পজিটিভের খবর এলে আমরা ওই নারীর বাড়ি এবং আশপাশের ৫০ টি বাড়ি লকডাউন করে রাখি।’

এসময় ইউএনওর সঙ্গে শিবচর পৌরসভার মেয়র আওলাদ হোসেন খান, সহকারী পুলিশ সুপার(শিবচর সার্কেল) আবির হোসেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (টিএইচও) ডা. শশাঙ্ক ঘোষ, শিবচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান বিএম আতাউর রহমান, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ইলিয়াছ হেসেন পাশা, কাঁঠালবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহসেন উদ্দিন সোহেল বেপারী, বিভিন্ন ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দসহ আরো অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

Live TV

আপনার জন্য প্রস্তাবিত