চিকিৎসকদের গ্রামে যাওয়ার আহ্বান বঙ্গবন্ধুর

115

Published on অক্টোবর 28, 2020
  • Details Image

প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বলেছেন, দেশে চিকিৎসা শিক্ষা গ্রহণের জন্য ছাত্রদের সম্ভাব্য সর্বোত্তম শিক্ষা দেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় বন্দোবস্ত করা হচ্ছে। পিজি ইনস্টিটিউটকে এজন্য সব প্রয়োজনীয় উপকরণে পুরোপুরি সুসজ্জিত ও উন্নত করা হচ্ছে। ফলে এখন আর উচ্চশিক্ষা গ্রহণের জন্য ডাক্তারদের বিদেশ যাওয়ার দরকার পড়বে না।  তবে এই নীতি বিশেষজ্ঞ গবেষণার জন্য বিদেশ গমনেচ্ছুদের অন্তরায় হবে না।

গণভবনে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজের ছাত্র প্রতিনিধিদের কাছে বঙ্গবন্ধু এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যোগ্যতাসম্পন্ন ডাক্তাররা গ্রামে যান, তাহলে গ্রামের লোকেরা আধুনিক চিকিৎসার সুযোগ সুবিধা পাবেন।’ তিনি বলেন, ‘এটা দুর্ভাগ্যজনক যে, জনগণের পয়সায় বিদেশে উচ্চশিক্ষা নেওয়ার পর ডাক্তাররা দেশবাসীর প্রতি তাদের দায়িত্বের কথা একদম ভুলে গিয়ে বিদেশে চাকরি করতে থাকেন।’ সরকার যে উচ্চশিক্ষার জন্য বিদেশ ভ্রমণের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ করেছে, এটা তার অন্যতম কারণ বলে তিনি জানান।

সীমান্তে সাড়ে ৬ হাজার চোরাচালানি আটক

সাড়ে ছয় হাজার চোরাচালানি আটকের মাধ্যমে সরকারের চোরাচালানবিরোধী অভিযান সর্বাত্মকভাবে সফল হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মান্নান। তিনি আরও বলেন, ‘সীমান্ত এলাকা বরাবর সেনাবাহিনী নিয়োগের ফলে চোরাকারবার বিপুলভাবে হ্রাস পেয়েছে এবং বিপুল সংখ্যক চোরাচালানি গ্রেফতার হয়েছে।  আর কতদিন সেনাবাহিনী সীমান্তে তাদের অভিযান চালাবে, এই কথা জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন,  ‘প্রথম সুযোগেই সেনাবাহিনী প্রত্যাহার করা হবে।’

দৈনিক বাংলা, ২৯ অক্টোবর ১৯৭২

ঈদের আগেই সংবিধান পাস হতে পারে

আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের চিফ হুইপ শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, ‘গণপরিষদে সংবিধান বিলটি নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে গৃহীত হবে বলে আশা করা যাচ্ছে। আশা প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘৩০ অক্টোবর সকালে পরিষদের অধিবেশন আবারও শুরু হবে এবং বিকালের অধিবেশনে সংবিধানের তৃতীয় পাঠ শুরু হবে। দ্বিতীয় পরিষদের অধিবেশনে সংবিধানের প্রতিটি ক্লজ ধরে ধরে আলোচনা করা হবে বিলটি।’ সাধারণ নীতিগুলোর ওপরে বিতর্ক আগামী সোমবার সকালের অধিবেশনেই শেষ হয়ে যাবে বলে আশা প্রকাশ করা যাচ্ছে।

বাংলাদেশ থেকে ভারত  সাত কোটি টাকার পাট নেবে

চলতি আর্থিক বছর শেষ হওয়ার মধ্যেই বাংলাদেশের কাছ থেকে ভারত সাত কোটি টাকার কাঁচা পাট কিনতে যাচ্ছে বলে জানা গেছে। বিশ্বস্ত সূত্রে জানা যায়, একটি ভারতীয় বিশেষজ্ঞ দল এখন বাংলাদেশ সফর করছে। তারা বাংলাদেশ থেকে বিপুল পরিমাণ পাট আমদানির ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা করছে।

পুনর্বাসনের জন্য ৬৭ কোটি টাকার পরিকল্পনা

বাংলাদেশ সরকারের পূর্ত দফতরের মন্ত্রী মতিউর রহমান ঘোষণা করেন যে, হানাদার বাহিনীর বর্বর আক্রমণে বাংলাদেশের সব এলাকার বিধ্বস্ত ঘরবাড়ি নির্মাণের জন্য সরকার ৬৭ কোটি টাকার একটি পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। রংপুর জেলার মাদারগঞ্জে এক জনসভায় ভাষণদানকালে পূর্তমন্ত্রী ঘোষণা করেন যে, আগামী বছর হতে এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নের কাজ শুরু হবে।

সূত্রঃ বাংলা ট্রিবিউন

Live TV

আপনার জন্য প্রস্তাবিত