২০২১-২২ অর্থবছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধি হবে ৭.২৫%

857

Published on মে 10, 2022
  • Details Image

মহামারীর দুঃসময় কাটিয়ে বাংলাদেশের মোট দেশজ উৎপাদনের প্রবৃদ্ধি আবার ৭ শতাংশের ঘর অতিক্রম করতে যাচ্ছে বলে ধারণা দিয়েছে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো-বিবিএস।

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান জানিয়েছেন, চলতি অর্থবছরের মার্চ পর্যন্ত নয় মাসের হিসাব ধরে প্রবৃদ্ধির এই প্রাক্কলন করেছে বিবিএস। তাতে দেখা গেছে, ২০২১-২২ অর্থবছরে সাময়িক হিসাবে স্থির মূল্যে ৭ দশমিক ২৫ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধির হতে পারে।

সরকারি হিসাবে গত ২০২০-২১ অর্থবছরের ৬ দশমিক ৯৪ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধি হয়েছিল। আর মহামারীর ধাক্কায় ২০১৯-২০ অর্থবছরে এই প্রবৃদ্ধি নেমে গিয়েছিল ৩ দশমিক ৪৫ শতাংশে।

এ অর্থবছরের বাজেটে সরকার ৭ দশমিক ২ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধির লক্ষ্য ধরেছিল। পরিসংখ্যান ব্যুরোর প্রাক্কলন বলছে, বাজেটের ওই লক্ষ্যকেও ছাড়িয়ে যাচ্ছে এবারের প্রবৃদ্ধি।

মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠক পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে পরিসংখ্যান ব্যুরোর প্রতিবেদন তুলে ধরে পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, চলতি অর্থবছর শেষে বাংলাদেশের মানুষের মাথাপিছু আয় বেড়ে ২ হাজার ৮২৪ ডলারে পৌঁছাবে, যা গত অর্থবছরে ২ হাজার ৫৯১ ডলার ছিল।

সাময়িক হিসাবে, অর্থবছর শেষে বাংলাদেশের মোট জিডিপি বেড়ে ৪৬৫ বিলিয়ন ডলার হবে বলে প্রাক্কলন করেছে রিসংখ্যান ব্যুরো।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, চলতি অর্থবছরে দেশে জিডিপির ৩১ দশমিক ৬৮ শতাংশ বিনিয়োগ হয়েছে।

পরিসংখ্যান ব্যুরোর প্রতিবেদন বলা হয়েছে, এবারের মোট দেশজ উৎপাদনে কৃষি খাতের প্রবৃদ্ধি ধরা হয়েছে ২ দশমিক ২০ শতাংশ।

এর মধ্যে শস্য উপখাতে ১ দশমিক ০৬ শতাংশ, পশুপালনে ৩ দশমিক ১০ ভাগ শতাংশ, বন উপখাতে ৫ দশমিক ০৮ শতাংশ এবং মৎস্য খাতে ২ দশমিক ০৮ শতাংশ প্রবৃদ্ধি প্রাক্কলন করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সাময়িক হিসাবে ম্যানুফ্যাকচারিং খাতে ১২ দশমিক ৩১ শতাংশ প্রবৃদ্ধি প্রাক্কলন করা হয়েছে। এছাড়া বিদ্যুৎ খাতে ৭ দশমিক ২৪ শতাংশ এবং নির্মাণ খাতে ৮ দশমিক ৯৪ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হবে বলে ধরা হয়েছে।

বিবিএস এর হিসাবে সার্বিকভাবে চলতি অর্থবছর শিল্প খাতে গত অর্থবছরের তুলনায় ১০ দশমিক ৪৪ শতাংশ প্রবৃদ্ধি প্রাক্কলন করা হয়েছে।

সেবা খাতে পাইকারী ও খুচরা ব্যবসা খাতে ৮ দশমিক ৭২ শতাংশ, যানবাহন খাতে ৫ দশমিক ৭০ শতাংশ, ব্যাংক ও বীমা খাতে ৭ দশমিক ৬০ শতাংশ, শিক্ষা খাতে ৬ দশমিক ২৩ শতাংশ ও স্বাস্থ্য খাতে ৯ দশমিক ৭৮ শতাংশ প্রবৃদ্ধি প্রাক্কলন করা হয়েছে।

সার্বিকভাবে সেবা খাতে গত অর্থবছরের তুলনায় উৎপাদন ৬ দশমিক ৩১ শতাংশ বাড়বে বলে ধরা হয়েছে।

পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম এক প্রশ্নের উত্তরে বলেন, “আমরা মনে করি, দেশের অর্থনীতি পুরোপুরি না হলেও অনেকটাই পুনরুদ্ধার হয়েছে। তাই এই প্রবৃদ্ধি আশানুরূপ বলে আমরা মনে করি।

“তাছাড়া জিডিপির হিসাব বিবিএস এর চেয়ে ভাল কেউ করার মত নেই। আমরা বিবিএস এর হিসাবটাই নেব। তাই বিবিএস এর ওপরই আমাদের নির্ভর করতে হবে।”

এক প্রশ্নের উত্তরে ড. আলম বলেন, “সম্প্রতি রেকর্ড রপ্তানি ও রেমিটেন্স আসার পরও আমদানি বেড়ে যাওয়ায় আমাদের রিজার্ভ কিছুটা চাপে পড়েছে। তবে আমদানি বাড়লে দেশে বিনিয়োগ বাড়ছে বলেই মনে করা হয়।”

Live TV

আপনার জন্য প্রস্তাবিত