বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গবেষণার প্রথম প্রাতিষ্ঠানিক উদ্যোগ

মনজুরুল আহসান বুলবুল: আমাদের সকল সংগ্রামে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গৗরবগাথা ইতিহাসেই স্বীকৃত। বয়সের হিসাব দেখলেও দেখি, শেখ মুজিব আর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পথ চলা প্রায় হাত ধরাধরি করেই। ২০২০ সাল পালিত হচ্ছে মুজিববর্ষ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ হিসেবে, আর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষ পালিত হবে ২০২১ সালে, আগামী বছর। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব আর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ন...

ফিরে দেখা সাতই জুন

মাহফুজ উল্লাহঃ আজ সাতই জুন। বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসের এক উজ্জ্বল দিন। বাংলাদেশের বর্তমান প্রজন্ম এ দিনটি সম্পর্কে তেমন কিছু জানে না। জানবার কথাও নয়। তরুণদের তো আর দেশের ইতিহাস পড়ানো হয় না। যা পড়ানো হচ্ছে তা খণ্ডিত চিত্র, যা ঘটেছে তার বর্ণনা ও প্রতিক্রিয়া নয়। কিন্তু বাংলাদেশের স্বাধীনতার সঙ্গে যে প্রজন্ম জড়িত সে প্রজন্মের প্রত্যেকের কাছেই ৭ জুন পরিচিত তারিখ। সমর্থন...

বাঙালির মুক্তির সনদ ‘৬-দফা’

বাঙালি জাতি চির দুর্বার, চির দুর্মর। যুগে যুগে তারা অন্যায়ের বিরুদ্ধে সোচ্চার থেকেছে। শক্তিবলে অসম হলেও তারা ব্রিটিশদের সামনেও কভু মাথা নত করেনি। পাকিস্তানী শোষকগোষ্ঠীর দুঃশাসন,অত্যাচারে জর্জরিত বাঙালি দৃঢ়কন্ঠে অন্যায়ের প্রতিবাদ জানিয়েছে। ৫২’র হার না মানা আন্দোলনের মধ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠা করেছে নিজেদের মাতৃভাষার অধিকার । ধীরে ধীরে দৃপ্ত পদক্ষেপে এগিয়ে গেছে স্বাধিক...

বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ছয় দফার তাৎপর্য

ড. এম এ মাননানঃ বঙ্গবন্ধুর পদচারণা এ দেশের অনেক কিছুতেই। সমতলের মেঠোপথ, হাওর-বাঁওড়ের কূলঘেঁষা সবুজ গ্রাম, সাগরপাড়ের মৎস্যজীবী অঞ্চল, পাহাড়ের অরণ্যভূমি, নদী সিকস্তির নিম্নভূমি, শহরের অলিগলি, কোথায় ছিল না তার পদচারণা। সদর্প পদচারণা ছিল রাজনীতির সুবিশাল ময়দানে, অর্থনীতির পরতে পরতে, শিল্পাঞ্চলের মেহনতি মানুষের আঙিনায়। অনেক পদচারণার অন্যতম ছিল পাকিস্তানি সামরিক শ...

ছয় দফা ॥ শহীদের রক্তে লেখা

তোফায়েল আহমেদঃ আজ ঐতিহাসিক ৭ জুন। ১৯৬৬-এর এই দিনে পাকিস্তানের তদানীন্তন সামরিক প্রেসিডেন্ট আইয়ুব খান এ দেশের গণতন্ত্রকে হত্যার জন্য ষড়যন্ত্র করেছিলেন। বাংলার গণমানুষ স্বাধিকার ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ সকল রাজবন্দীর মুক্তির দাবিতে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে ৭ জুন সামরিক শাসকগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে সর্বব্যাপী হরতাল পালন করেছিল। বাংলা মায়ের দামাল সন্তানরা এদিন তা...

স্বাধীনতা অর্জনের প্রথম পদক্ষেপ

ড. এম এ মাননানঃ ২০২০ সালের ৭ জুন ৫৪তম ছয় দফা দিবস। প্রকৃতপক্ষে ১৯৬৬ সালের ৫-৬ ফেব্রুয়ারি লাহোরে অনুষ্ঠিত পাকিস্তানের দুই অংশের সব বিরোধী দলের কনভেনশনের সাবজেক্ট কমিটিতে বঙ্গবন্ধু প্রথম তাঁর প্রণীত ছয় দফা কর্মসূচি পেশ করার চেষ্টা করেন, যদিও কয়েকজন জ্যেষ্ঠ নেতার বিরোধিতার কারণে এ উদ্যোগ ব্যর্থ হয়। তবে তিনি ১১ ফেব্রুয়ারি ছয় দফার ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন ঢাকা বিমানবন্দরে লাহ...

বঞ্চনার প্রবল প্রতিবাদের দিনে নতুন প্রত্যাশা

অজয় দাশগুপ্তঃ ৫৪ বছর আগে ১৯৬৬ সালের ৭ জুন সে সময়ের অপেক্ষাকৃত ছোট পরিসরের ঢাকা ছিল অগ্নিগর্ভ। লোকসংখ্যা লাখ দশেক। শেখ মুজিবুর রহমান আওয়ামী লীগের প্রাদেশিক কমিটির সাধারণ সম্পাদক হিসেবে চার মাস দুই দিন আগে ৫ ফেব্রুয়ারি পশ্চিম পাকিস্তানের রাজধানী লাহোরে সরকারবিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতাদের সম্মেলনে বাঙালির প্রতি বঞ্চনার প্রতিকারের জন্য স্বায়ত্তশাসনের ছয় দফা কর্মসূচি প...

ছয় দফা থেকে স্বাধীনতার ঘোষণা- মুক্তির পথে বাঙ্গালী জাতি

জানুয়ারি ১৯৬৬তাশখন্দে পাকিস্তানের রাষ্ট্রপতি আইয়ুব খান এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী লাল বাহাদুর শাস্ত্রী সেপ্টেম্বর ১৯৬৫ সালের যুদ্ধের জন্য নিজেদের মধ্যে শান্তি চুক্তি স্বাক্ষর করেন। এর কিছুদিনের মধ্যেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে লাল বাহাদুর শাস্ত্রী মারা যান। ফেব্রুয়ারি ১৯৬৬পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী লীগ নেতা শেখ মুজিবুর রহমান লাহোরে পাকিস্তানের বিরোধীদলীয় রাজনীতিকদের একটি সম্মেলনে ছয়...

জুলিও কুরি বঙ্গবন্ধু

সুভাষ সিংহ রায়ঃ ১৯৭৩ সালের ২৩ মে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের উত্তর প্লাজায় উন্মুক্ত চত্বরে সুসজ্জিত প্যান্ডেলে বিশ্ব শান্তি পরিষদ আয়োজিত অনুষ্ঠানে আন্তর্জাতিক কূটনীতিকদের বিশাল সমাবেশে বিশ্ব শান্তি পরিষদের তৎকালীন মহাসচিব রমেশ চন্দ্র বঙ্গবন্ধুকে ‘জুলিও কুরি’ শান্তি পদক প্রদান করেন। এরপর তিনি বলেন, ‘শেখ মুজিব শুধু বঙ্গবন্ধু নন, আজ থেকে তিনি বিশ্ববন্ধুও বটে।&...

জুলিও কুরি শেখ মুজিব

মামুল আল মাহতাবঃ নিজের জীবদ্দশায় তার কালজয়ী অর্জনের জন্য বঙ্গবন্ধুর সবচেয়ে বড়ো স্বীকৃতি ছিল স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয় আর বাঙালির জাতির পিতার মর্যাদা লাভ। বঙ্গবন্ধুর অর্জনগুলোর যে বিশালত্ব, কোনো পদকের মাপকাঠিতে তা মাপার চেষ্টা বাতুলতা মাত্র। তার পরও একটি পদকের কথা ঘুরেফিরেই চলে আসে। আশির দশকের শেষ ভাগে আর নব্বইয়ের দশকের শুরুতে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজের করিডরে &...

জুলিও কুরি পদকে ‘বঙ্গবন্ধু’ হয়েছিলেন ‘বিশ্ববন্ধু’

খায়রুল আলমঃ পরাধীনতা থেকে স্বাধীনতা পেয়েছিলো বাঙ্গালী জাতি। পাকিস্তানীদের শাসন, শোষণ এবং নিপীড়ন থেকে মুক্তি দিতে ৭ কোটি মানুষের ত্রাতা হিসেবে এসেছিলেন সর্বকালের সেরা পুরুষ , ক্ষণজন্মা , বাঙ্গালী জাতির মহানায়ক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহান মুক্তিযুদ্ধের মহানায়ক, বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭১ সালে ফ্যাসিবাদ ও সাম্রাজ্যবাদবিরোধী স...

জুলিও কুরি বঙ্গবন্ধু ও বর্তমান বিশ্বশান্তি প্রেক্ষাপট

অধ্যাপক রশীদুল হাসানঃ করোনার করালগ্রাস বিশ্বে আজ মহামারীতে পরিণত হয়েছে। হাজার হাজার মানুষ মারা যাচ্ছে, লক্ষ লক্ষ মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে। কর্মহীন হয়ে পড়ছে কোটি কোটি মানুষ। সকল বিশ্ব সংস্থার পরিসংখ্যান বলছে এ সংকট আরো বাড়বে। দরিদ্র মানুষের সংখ্যা বৃদ্ধি পাবে বহুলাংশে। কোটি কোটি মানুষের দুর্ভিক্ষের সম্মুখীন হবার সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে। অনেক কল-কারখানা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে, বিশ্ব ...

ঐতিহাসিক দিনে আ.লীগের সাংগঠনিক কমিটি ঘোষণা

আজ ঐতিহাসিক ১৭ এপ্রিল। এইদিনে মেহেরপুর মহকুমার বৈদ্যনাথ তলার আম্রকাননে বাংলাদেশের মুক্তিপাগল সাড়ে সাত কোটি মানুষের স্বাধীনতা ঘোষণা করা হয়। স্বাধীনতার এক বছর পর একই দিনে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক কমিটির সদস্যদের নাম ঘোষণা করা হয়। কমিটির সভাপতি হন শেখ মুজিবুর রহমান, আর সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান। আওয়ামী লীগ সভাপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দলের সাংগঠনিক কমি...

১৭ এপ্রিল ১৯৭১: একটি ঐতিহাসিক ধাপ পেরিয়েছিল বাংলাদেশ

এম নজরুল ইসলামঃ ১৯৪৭ সালের দেশভাগের পর থেকে ১৯৭০ পর্যন্ত বাঙালি জাতি পশ্চিম পাকিস্তানের শাসকগোষ্ঠীর দ্বারা কেবলই নিপীড়িত হয়েছে। বাঙালিকে বঞ্চিত করা হয়েছে প্রতি পদে পদে। ১৯৭০-এ পাকিস্তানের ইতিহাসে প্রথম সরাসরি সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে। কিন্তু বাঙালিদের পাকিস্তানের শীর্ষ ক্ষমতায় যেতে দিতে পাঞ্জাবি শাসকরা রাজ...

১৭ই এপ্রিল, ১৯৭১ ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস

১৭ই এপ্রিল ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস, বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের সুদীর্ঘ ইতিহাসের এক চির ভাস্বর অবিস্মরণীয় দিন। ১৯৭১ সালের এই দিনে কুষ্টিয়া জেলার তদানীন্তন মেহেরপুর মহকুমার বৈদ্যনাথতলার আম্রকাননে স্বাধীন-সার্বভৌম গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের প্রথম সরকার আনুষ্ঠানিকভাবে শপথ গ্রহণ করে। এ অনুষ্ঠানে ষোষিত হয় ১৯৭১ সালের ১০ এপ্রিলে গঠিত গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্বাধীন...

২৫ মার্চ জাতীয় গণহত্যা দিবসঃ ভয়াল কালরাত্রির গণহত্যা

মানব ইতিহাসের অন্যতম বর্বর নিষ্ঠুরতম গণহত্যার একটি রাত। একাত্তরের ২৫শে মার্চের সেই রাত। গভীর রাতের নিস্তব্ধতার মধ্যে হঠাৎই ট্যাংকের গর্জন শুনতে পায় শহরবাসী। পাখির ডাক নয়, বাংলাদেশ তথা তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের লাখ লাখ জনসাধারণ জেগে ওঠে অনবরত গোলাগুলির শব্দে। বিশ্ব ইতিহাসের নৃশংসতম এবং বৃহত্তম এক গণহত্যার সূচনা হয় এভাবেই, যা পরিচালনা করেছিল তৎকালীন পাকিস্তানের সাম...

যার নামের উপর কখনো ধুলো জমতে দেয় না হাওয়াঃ এম. নজরুল ইসলাম

তাঁর জাদুকরি সম্মোহনী শক্তিই বাঙালি জাতিকে উদ্বুদ্ধ করেছিল গুলির সামনে বুক পেতে দিতে। তিনি বরাভয় দিয়েছিলেন বলেই ভয় পায়নি জাতি। ইতিহাসের সেই বরপুত্র বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, আমাদের জাতির জনক। আজো তিনি আমাদের প্রেরণার উৎস। আমাদের সত্ত্বায় মিশে আছেন তিনি। আজ ১৭ মার্চ এই মহান বাঙালির জন্মদিন। বাঙালির আত্মপরিচয়ের প্রতিক তিনি। একজন মানুষ যে দেশ ও জাতির সমার্থক ...

বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম ও বঙ্গবন্ধু

বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম ও বঙ্গবন্ধু

বঙ্গবন্ধুর জীবন সংগ্রাম

বঙ্গবন্ধুর জীবন সংগ্রাম

বাংলাদেশের স্বাধীনতার দুর্জয় আকাঙ্ক্ষার প্রতীক বঙ্গবন্ধু

ড. শিরীন আখতারঃ ধর্মীয় জাতিসত্তাবিশিষ্ট পাকিস্তান নামক রাষ্ট্রের অধীনে শাসিত হওয়ার প্রাথমিক অবস্থা থেকে বাঙালি জাতির অনেকেই তাদের কী অন্ধকারময় ভবিষ্যৎ রচিত হতে যাচ্ছে সে সম্পর্কে অনেকটা আঁচ করতে পেরেছিল। যতই দিন যাচ্ছে ততই তাদের উপলব্ধি তীব্র হতে শুরু করে। রাজনীতিক থেকে শুরু করে ছাত্রসমাজ, শিক্ষক, বুদ্ধিজীবী, সশস্ত্র বাহিনী ও অন্যান্য সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে বিভিন্ন শ্র...

  • «
  • »