খালেদা জিয়ার বক্তব্যের প্রতিবাদে ড. হাছান মাহমুদ এমপি’র বক্তব্য

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ আজ এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া মিথ্যাচারে নিজের অতীতের সকল রেকর্ড ভঙ্গ করেছেন। মিথ্যা বলা খালেদা জিয়ার চিরাচরিত অভ্যাস। গত পরশু ছাত্রদলের এক সভায়ও তিনি যথারীতি তা অব্যাহত রেখেছেন। সেদিন তিনি চরম মিথ্যাচার এবং বিদ্বেষমূলক বক্তব্য রেখেছেন। 

বিএনপির রাজনীতি প্রকৃতপক্ষে মিথ্যার ওপর প্রতিষ্ঠিত। আমরা আশা করেছিলাম খালেদা জিয়া বছরের প্রথম দিন অন্তত জনগণের উদ্দেশে অতীতের কৃতকর্মের জন্য ক্ষমা চেয়ে নতুন বছর নতুন করে শুরু করবেন। কিন্তু নতুন বছরেও তিনি তার পুরোনো অভ্যাস বদলাতে পারেননি।

বিএনপি-জামায়াত ২০১৩, ১৪ ও ১৫ সালে বাংলাদেশে অগ্নি-সন্ত্রাস চালিয়ে মানুষকে হত্যা করেছে। তারা মানুষকে আগুনে ঝলসে দিয়েছে। হাজার হাজার কোটি টাকার সরকারি এবং বেসরকারি সম্পত্তি ধ্বংস করেছে।

খালেদার নেতৃত্বে বিএনপি আগুন সন্ত্রাস করেছে, তা দিবালোকের মতো সত্য। সন্ত্রাসের অভিযোগে গ্রেফতারকৃতরা স্বীকার করেছে যে বিএনপির শীর্ষ নেতাদের নির্দেশেই তারা বোমাবাজি করেছে, আগুন সন্ত্রাস করেছে।

ড. হাছান সাংবাদিকদের স্মরণ করিয়ে দিয়ে বলেন, নিশ্চয়ই আপনাদের মনে আছে যে বোমা বানানোর সময় জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের নিউমার্কেট শাখার সসভাপতির হাতের কব্জি উড়ে গিয়েছিলো। এর পরও কি বলা যাবে বিএনপি বোমা-সন্ত্রাসের সঙ্গে জড়িত নয়? তিনি বলেন, বিএনপি-জামায়াতের আগুন সন্ত্রাসীরা ট্রেনে-বাসে-লঞ্চে আগুন দিয়েছে। তারা ট্রাকের ভেতর ঘুমিয় থাকা ড্রাইভারকে পর্যন্ত পুড়িয়ে মেরেছে।

সংসদ সদস্য লিটন হত্যাকাণ্ড সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে ড. হাছান বলেন, আমাদের প্রাথমিক ধারণা- এর পেছনে জামায়াত ও জঙ্গিগোষ্ঠী জড়িত। আর এ দেশে জামায়াত ও জঙ্গিদের প্রধান মদদদাতা বিএনপি ও দলনেত্রী খালেদা জিয়া।

তিনি বলেন, ২০০১-০৬ সাল পর্যন্ত সময়কালে আহসানউল্লাহ মাস্টার ও কিবরিয়ার মতো সংসদ সদস্যকে হত্যা করা হয়েছে। কিন্তু সে সময় বিএনপি এ ব্যাপারে সংসদে নিন্দা প্রস্তাব আনাতো দূরের কথা, শোক প্রস্তাব পর্যন্ত সংসদে আনেনি।

হাছান মাহমুদ বলেন, সম্প্রতি দেশে অনুষ্ঠিত স্থানীয় পরিষদ নির্বাচন এবং কয়েকদিন আগে নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনের পর বিএনপি উপলব্ধি করতে পেরেছে যে অগ্নি সন্ত্রাসের কারণে তাদের জনপ্রিয়তা তলানিতে গিয়ে ঠেকেছে। এ অবস্থা থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য খালেদা জিয়া এখন মিথ্যাচারের আশ্রয় নিয়েছেন।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের উপপ্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক শ্রী সুজিত রায় নন্দী, উপদপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।

তারিখ: ৩ জানুয়ারি ২০১৭
প্রেস বিজ্ঞপ্তি

TOP